লালকালো, গিরীন্দ্রশেখর বসু ছোটদের গল্পের বই

Advertisment

লালকালো, গিরীন্দ্রশেখর বসু ছোটদের গল্পের বই পিডিএফ

ডিজিটাল বইয়ের নাম- লালকালো
লেখক- গিরীন্দ্রশেখর বসু
বইয়ের ধরন- কিশোর সাহিত্য
ফাইলের ধরন- পিডিএফ
এই বইতে মোট পৃষ্টা আছে- ৮০
ডিজিটাল বইয়ের সাইজ- ১৩ এমবি
প্রিন্ট ভালো, অবশ্যই জলছাপমুক্ত
লেখক ও বই সমন্ধে কিছু কথা-
ঘোষেদের পুরনো ভিটের ধারে যে ডোবা আছে, তার একদিকে কালো পিপীলিদের রাজ্য, আর একদিকে লাল পিপড়েদের রাজত্ব। দুই রাজত্বের মধ্যে খুব বিশেষ বনিবনা নেই। কালো ও লাল পিপড়েদের মধ্যে প্রায়ই খুটিনাটি নিয়ে ঝগড়া মারামারি হয়।
আর এই লাল পিঁপড়ে আর কালো পিপিলিদের যুদ্ধের নানান ঘটনা নিয়ে এই গল্প - "লাল কালো"।
বাংলা সাহিত্যের পাঠকগণ বিশিষ্ট লেখক শ্রীরাজশেখর বসু (ছদ্মনাম-পরশুরাম) নামটি সাথে ভিষনভাবে পরিচিত কিন্তু এই লেখকের ছোট ভাই ডক্টর গিরীন্দ্রশেখর বসু এই নামের সাথে ততটা পরিচিত নন। তবে ডক্টর গিরীন্দ্রশেখর বসু এই নামটি মনোবিজ্ঞান জগতে অনেক বেশি পরিচিত ও বিখ্যাত। আধুনিক মনোবিজ্ঞানের বিকাশে তাঁর অপরিসীম অবদান রয়েছে এ ব্যাপারে কোন সন্দেহ নেই। এবং তাঁকে ভারতবর্ষের অগ্র্রদূত বললে কোন অতিশয়োক্তি হয় না। তিনি লালকালো বইটি ১৩৩৭ বঙ্গাব্দে রচনা করেন ।
"লালকালো" বইটি পড়েছেন এমন পাঠকের সংখ্যা বোধহয় খুবই কম। হয়ত, বাজারকরণের অভাব - বিশেষতঃ মুল ধারার প্রকাশনায় এইসমস্যা। নতুবা লালকালো এই বইটি অনায়াসে সুকুমার রচনার সমতুল্য হিসাবে গণ্য হত। একথা অবিশ্বাস্য মনে হচ্ছে? একবার গল্পটি পড়ে দেখুন!

বইটির ভুমিকা লেখার মধ্যে অসাধারণ কিছু লক্ষ্য করা যায়-
সাত সমুদ্দুর তের নদী লঙ্কাদ্বীপের পার,
তেপান্তরের মাঠে নামে রাতের অন্ধকার,
তেপান্তরের মাঠের মাঝে বোম্বা শিমুল গাছ
আগডালে তার বসে আছে কঁকুড়শিঙে মাছ।

মাছের পেটে মাণিক জ্বলে, হাজার বাতির আলো,
সারা মাঠটি আঁধার ঘেরা ঘুটঘুট্টে কালো;
যায় না দেখা গাছের পাতা যায় না দেখা মাটি,
জলের ধারে কোলা ব্যাঙ চলছে হাঁটি হাঁটি ;

আকাশ পানে চোখ দুটো তার পাতাল পানে হাঁ,
আসশেওড়ার ঝোপের মাঝে হুতুমথুমোর ছাঁ।
ঘুমের ঘোরে দেয়াল করে কঁকুড়শিঙে হাসে,
হাজার বাতি উঠল জ্বলে মাঠের চারি পাশে।

হকচকিয়ে কোলা ব্যাঙ ওপর পানে চায়,
গুটি গুটি হুতুমথুমো ধরল এসে তায়।
ফাটাল বয়ে ময়াল সাপ শিমুল গাছে চড়ে,
ঘুম ভেঙে যায় কঁকুড়শিঙের মাথার টনক নড়ে।

এক লাফেতে পালিয়ে গেল কঁকুড়শিঙে মাছ,
পছলে পড়ে ময়াল সাপ, তেলা শিমুল গাছ,
হুড়মুড়িয়ে ভেঙে গেল শিমুল গাছের ডগা
কঁকালভাঙা ময়াল সাপে নিয়ে গেল বগা।

মনের সুখে কঁকুড়শিঙে সাগর দোলায় দোলে,
হেসে ওঠে খোকনমণি জেগে মায়ের কোলে।
ঝিকমিকিয়ে শিমুল চূড়ো নামূল ভোরের আলো,
খোকার সাথে খুকুমণি পড়বে লালকালো।

লালকালো, গিরীন্দ্রশেখর বসু

উপরোক্ত বাংলা বইটির পিডিএফ ফাইল সংগ্রহ করুন অথবা অনলাইনে পড়ুন
আজকের বই -'লালকালো, গিরীন্দ্রশেখর বসু'
ছোট্ট পাঠকগণ, তোমরা এই সুন্দর কল্পিত গল্পের বইখানির পিডিএফ ফাইল সংগ্রহ করিতে পারিবে।

All kind of old and new Bangla books collection in pdf
Previous
Next Post »